মৌদিনের মাসগুলি

সুজয় দত্ত
অসুখ

বৌয়ের শরীর খারাপ হলে
দূর হয়ে যায় ডাক্তারবাড়ি
দিগন্তের থেকেও দূর এক ছলে
মাথার ভেতর মস্ত বালিয়াড়ি
#
আস্ত একটা ব্যাঙ্ক জামার পকেটে
কথারা জড়িয়ে নেয় নিজেদের জালে
ভাত ঠান্ডা , খাওনি, ওষুধ খালি পেটে ?
কী হবে? খারাপ চিন্তা , শরীর খারাপ হলে
#
নিজেকে মনে হয় অসহায় নাবিক, দাঁড়ভাঙা
নৌকার সওয়ারী এক, চারিদিক জলে
এই আমি কোনজন কুয়াশায় ঘেরা
নিজেরই অচেনা , ওর শরীর বিগড়ালে
#
এত এত লেখাজোকা মনে হয় স্পন্দন ক্ষত
এর থেকে ডাক্তারি পড়লে ভালো হত



যজ্ঞ

পথ যখন থেমে যায় জঙ্ঘার খাঁজে
আগুনে পুড়ছে ঘি স্বাহা স্বাহা রব
সব দরজা বন্ধু , সব অন্ধকার আলো
#
শুধু জানালা দেখে
বাইরে সমুদ্র
সাদা ফেনা নিয়ে ঢেউ ভাঙছে
ঘরের ভিতরে তার প্রতিধ্বনি



হাওয়া
সুইচ টিপলেই ঝরে পড়বে ফুল
দূর থেকে হাওয়ারা ওড়াবে তোর চুল
#
আমি তো ভাই দাঁড়িয়ে আছি গানের ওপারে
আজকে তোকে নগদ দেখি, কাল পরশু ধারে

বিরহী
রাত্রি ঘনালে আসে ফোন
রাত্রি ঘনালে বন্ধ দরজা
রাত্রি ঘনালে তুমি আস্ত মেঘ
বিরহের নাম মিসড্ কল
বৃষ্টির নাম মিসড্ কল
#
আর তুমি তখন একটা ফোনবুক
#
সব নাম্বারই তোমার কাছ যায়
সব কথাই তোমাতে মিলায়


পরাজয়কামী
অপেক্ষা এক ধরনের খেলা যদি হয়
বিশ্বাস কর, আমি জিততে চাইবোনা কোনদিন


বাপের বাড়ি
গোছাতে গোছাতে কখন যে কাজল পথ হারায়
রমণক্লান্ত চাদর কি আজ বাপের বাড়ি যায়

আপনার মতামত জানান