সেদিন দুজনে

সমাপ্তি দাস

- এই যে শুনছেন... হ্যাঁ হ্যাঁ আপনাকেই বলছি... আপনি ইন্দিরা দত্ত না ?
- না আপনি কোনো ভুল করছেন। আমি ইন্দিরা ঠিকই, কিন্তু দত্ত না, রায়।
- না না, ভুল হতেই পারে না। আপনি দত্তই। আপনার লেখার এত বড় ভক্ত আমি , আর আপনাকে চিনতেই ভুল করবো! কক্ষনো না ! আপনি ইন্দিরা দত্তই।
- অদ্ভুত লোক তো মশাই আপনি ! বলছি আমি দত্ত নই, রায়। তবু জোর করছেন ।
- আহা হা , জোর কেন করবো... আচ্ছা আচ্ছা ঠিক আছে... বুঝেছি। আপনি আপনার আসল পরিচয় গোপন করতে চাইছেন তাই তো?
- দেখুন দাদা...
-আবার ওসব দাদা- টাদা কেন... ওই মশাই টাই তো ঠিক ছিল..
- যান তো আপনি.. আমাকে বই কিনতে দিন..
- হ্যাঁ আপনি বই কিনুন। তা কী বই কিনছেন দেখি? অ.. “রাস্তা ভুলে” ..? অমিতাভ ঘোষ?পড়েন বুঝি ওনার বই?
- হম..ওনার লেখার ফ্যান আমি..
- তা ছোকরা লেখে খারাপ না..যদিও আপনার লেখার তুলনায় তা কিছুই না...
- আপনি আবার শুরু করলেন! আর কতবার বললে আপনি বিশ্বাস করবেন বলুন তো যে আমি ইন্দিরা দত্ত নই..
- আহা আপনি চটছেন কেন..চলুন একটু চা খেয়ে মাথা ঠান্ডা করবেন...
- আমি বই কিনতে বইমেলায় এসেছি..আপনার সাথে চা খেতে না..
- হ্যাঁ তা তো বটেই... তবুও.. আরে চললেন কোথায়.. শুনুন না.. একবারটি শুনে যান..
------------
বাড়ি ফিরেই পাখাটা চালিয়ে ধপ করে বিছানায় শুয়ে পড়ল অমিতাভ। বাইরে থেকে মা চেঁচাতে লাগলেন," খোকন..এই ঠান্ডা তেও পাখা চালিয়েছিস! পাগল হলি নাকি?’
-"ইন্দিরার সঙ্গে দেখা করলি? কিরে..কিছু তো বল। কেমন লাগলো ইন্দিরা কে? আমার তো ছবি দেখে বেশ পছন্দ হয়েছে । কিরে খোকন..."
খোকন তখন একদৃষ্টি তে পাখার ঘুরন্ত ব্লেড গুলোর দিকে তাকিয়ে ।
মা বলে চললেন, "ইন্দিরার মা.. মানে পল্লবীর সাথে কতদিন পর দেখা,সেই স্কুল এর পর। উফফ কত্ত কথা হলো! ওই বলল ইন্দিরার কথা, ওর জন্য ছেলে দেখছে পল্লবী। আমিও বলে ফেললাম তোর্ কথা। কিরে বল..তোর্ কেমন লাগলো ইন্দিরা কে..তাহলে কথাবার্তা আরো এগোই...খোকন... "
খোকনের সমস্ত চিন্তা ভাবনা তখন 'রাস্তা ভুলে' মনের মধ্যে ঘুরপাক খাছে|
-----------------
পরের বছর বইমেলায়...
- এই যে শুনছেন..হ্যা আপনাকেই বলছি..আপনি ইন্দিরা দত্ত না?
একগাল হেসে এগিয়ে আসা ছেলেটির হাত টা ধরে ইন্দিরা বলল, "না আপনি কোনো ভুল করছেন| আমি ইন্দিরা ঠিকই, তবে দত্ত না, মিসেস ইন্দিরা অমিতাভ ঘোষ । "

আপনার মতামত জানান