চারটি কবিতা

সুজয় দত্ত
সীতাহরণ রহস্য
===========
ভিক্ষুকের বেশে দুয়ারে দাঁড়িয়ে আজ
অর্থ নয়, মোক্ষ নয়, চোখে দেখার তৃষা
গণ্ডি হয়ে দাঁড়িয়ে যখন বোবা কলিং বেল
দশমুখে ডাকবো? অবেলা কীর্তিনাশা
#
ঋষিতো এসব নয়, আমাকে করেছে লুটেরা
গৃহস্হ আজও ভিখিরিকে সন্দেহে চায়
আঁকতে চেয়েছি ও আঙিনায় আল্পনা
এ এক নীরব প্রেম-- রামায়ণে নাই

♦অপেক্ষার গান
==========
চোখের পলক তোমার চেনা হলেও
বইতে থাকা আলোর সাম্পান
আমায় ভেঙে গুঁড়ো গুঁড়ো করে
ধূলোর পাশে ক্লান্তি আর গান
#
গানের তরী অপেক্ষাতেই থাকে
সুরের নেই ধার করবার দায়
আজও আমি হার্মোনিয়ম রিড-এ
তোমায় খুঁজি সকাল-সন্ধ্যায়-

♦গান্ধারী
======
আঁধার রাত , উল্টো দিকের তীক্ষ্ণ হেডলাইট
মধ্যদুপুর, লুকিং গ্লাসে ঠিকরে আসা রোদ
ঠিক তেমনই চোখ ধাঁধিয়ে এলো ভালোবাসা ,
আমি কি আজ... আজ কি আমি...
...রাখবো বেঁধে চোখ

♦ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট
===========
পাথর হ'লে অন্য কথা, এ যে পলিমাটি
সহজে দাগ যাচ্ছে বসে, ব্যাথার আল্পনা
এসো, আঁকি নিভৃতে, শুনি যাতনা কেমন
নীল আকাশে সাদা বক, একা অ্যান্টেনা
#
এসব বিরল চিত্র , ক্যানভাসে থাক
বরং চুল এগিয়ে আনো, উকুন আজ বাছি
তারপর কথকতা, নীল না ভালো সাদা
আমি বলবো গাইতে গান , তুমি বলবে,'নাচি!'
#
এভাবে দিন গড়িয়ে যায় ভূগোল বইয়ের মতো
বৃষ্টি ঝরে, বাজের ঝলক হঠাৎ নামায় ভয়
দূর থেকে ওই স্লেটকে মুছি, বলি, ভাগো মেঘ
বলো, আর কীভাবে বন্ধু হতে হয়?

আপনার মতামত জানান