পাঁচটি কবিতা

রঙ্গীত মিত্র


'ডু ইউ হিয়ার দ্য,পিপল সিং'

কাউকে মানি না
নিজেকে শুধু।
আমার পিছনে
কাঠি নিয়ে
ছুটছে
তাই আগুন।
আমি মিছিলে
জনসমুদ্রে
বিচারসভায়
প্রমাণ করতে পারছিনা,
এই অপরাধ আমি করিনি।
আমার নামের কেউ
অথবা ওরা হিংসুটে ...
বই- এর পাতায় আমার নাম নেই
আমাকে মনে রাখার স্মৃতিতে
শহর হয়েছে।
এইবার ভূমিকম্পের সূচকের গায়ে
লেগে আছে,কারণ
পাহাড় তবু ঘুরছে
ভরসা বন্ধ্যা
বিভেদ পাবলিক ইকোনমিক্স
অবাধ্য হলেও,কথা বলা যাবে না?



সভ্যতা

জাফনা থেকে ফিরে আসা
হাওয়া
'বহুরূপী' , গনতন্ত্রের ছল।
তাই অবিশ্বাসও স্বপ্নতুর হয়
অথচ যখন লাস-ভেগাসে গিয়েছিলাম
কিম্বা জাপানের সেই রেঁস্তরা
শুধু এই উত্তাল সময়
আমরা জামা- কাপড় মুখে নিয়ে
সভ্যতাকে টেনে নিয়ে যাচ্ছি।




শহর

ধর্মতলা থেকে হাত বাড়িয়ে ডাকে,বাসেরা
বই- এর মলাট থেকে
উড়ে আসে,পুরাতন যৌন -অভিযোগ।
কিছুই না করতে পারা
আমি সেই
যার কাছে এখনো শহর অচেনা।



প্রচলিত

অসুস্থ নদী,শুয়ে আছে ।
বালিময় হাত
বানানো লেকগুলো
যৌন -মুক্তির সুর
অথচ বিনোদনে
মহিলাদেরই ব্যবহার করা হয়
প্রচলিত রীতিগুলো,পালটে দেবো।



ইনফ্লেশন

ডাকওয়ার্থ লুইস হয়না ড্রিপেশনে
ফিসারস ল টেনে ধরেছে
রিয়েল- মানি ব্যালেন্স।
তবু ওষুধ খাচ্ছি রোজ
সু -লেদার কস্ট কাঁপাচ্ছে,ভোরবেলা।
অথচ কিছুই নেই
নাইটক্লাবে ভিড়,অনলাইনে প্রেমিক
শুধু গুলির মুখে অভাব লেগে আছে।
কিন্তু স্বাভাবিক সব ;
সমান হয়ে যায়
তোমার হিলের গোড়া।
সিগারেটের রিং- এর ভিতর দিয়ে
ট্রাম চলে যায়
ভাঙে
গড়ে
নগ্নিকার পোস্টার, নির্জন সল্টলেকে
মেয়েদের নাকি শীত লাগেনা।
বোতল,তুলো, প্ল্যাস্টিকে
কলকাতার বয়স কমে।
জিনিস- পত্রের নয়।

আপনার মতামত জানান