নাসরিন বেগমের তিনটি কবিতা

নাসরিন বেগম


অবশেষে

অবশেষে পাওয়া গেল,আশেপাশে একটি
মুখোশের আড়ালেও কোনো মুখ নেই...
আর সব প্রজাপতি-দিন গুলো ছুটিতে...
নতুন আলতা পা এর লাজুক মেয়েটি
আর নয় নয় করে সব কটা বই
উলটে পালটিয়েও যখন একটাও কবিতা খুঁজে পেলো না...
অবশেষে জানা গেল...প্রতি পূর্ণিমার চাঁদ
একটার পর একটা সুইসাইড নোটের জন্ম দেয়...





ফিনিক্স -জন্ম

এইবার ডানা গুটোনোর দিন...প্রিয় জীবন...
বলে তরতর করে গুহার মধ্যে ঢুকতে যাবে পরী,
অনেক তো হল,একটার পর একটা আগুনে পোড়া...
আর নয়,এবার তবে অনন্ত শীত ঘুম আসুক;
হঠাত হাওয়ায় ভেসে এল এক আধচেনা ডাক,
"তোমার যে তবে ফিনিক্স-জন্ম আছে?"





ফটোশপ...

ফটোর কোনো জানালা থাকে না।
ফটোশপের ও না।বাইরে থেকে...
অনেক দূর থেকে অনেক অনেক
দূর থেকে মনে হয়.... ফটোর
মুহূর্তকাল আয়েসী,সুখের,বড্ড
হাওয়া বাতাস খেলে
সেখানে....আসলে তা এক দম
বন্ধ করা প্রকাশ্য কারাগার।
হয়তো সে মনে মনে ভেবে চলেছে....
কোনো একটা নতুন কবিতা
বা নতুন সিনেমা....
আর এদিকে তার হাত কে হয়তো
ধরে রাখতে হচ্ছে
পাশের জনের উন্মুক্ত কাঁধ।
যে কাঁধে কোনোদিন তিল খুঁজে
পায় নি সে...
এইজন্যেই ডার্করুমে সব ফটো ওয়াশ হয়...

আপনার মতামত জানান