শতানীক রায়ের কবিতা

শতানীক রায়

ফসল কাটার গান

স্নান সেরে বসেছি।
ফসল সব কাটা হয়ে গেছে।
গোটা একটা গ্রাম ঘুমোচ্ছে
এমন এক সময়ে একজন ময়ুরের বেশে এল
আহা! কী তীব্র ডাক!
বিঘে দুই ফসলের তলায় বিঘে দুই মাটি
গরম ক্ষেতের মধ্যে দিয়ে আমাদের চোখ ক্রমশ ধীরে মগ্ন হয়ে গেল
হায়!! এখন আর কেউ ফসলের গান গায় না
শরীরের ঘাম আর মেঘতীব্র হয়ে ওঠে না।
চরম কিছু শব্দ ছোট হতে থাকে
কৃষক নিজেরই লাঙলে চাষ করতে থাকে নিজেরই হাত পা
মাথা বুক পেট
এবং ইন্দ্রীয়,
আর এভাবে মাটি এসে যায় ধান এসে যায় রক্ত এসে যায়
আমাদের লুপ্তপ্রায় ফসল কাটার গানে।


চাষ

আহা!!
এত চাষ করছ কেন?
মাটিজন্মে আরও তো কত ফুল আছে
আঘাত পাবে পাপড়িগুলো
#
লতাগুল্মের অভিপ্রায় উপরে উঠছে।
চাষ করার রক্তে নিমগ্ন চন্দন দান করো।
বালি উঠে এল
যা নেই তার থেকে থরে থরে ব্রহ্মাণ্ড এল।
হরিণ এল ঘন অরণ্য থেকে।
ওরে ফুল, তোমার মায়ার নিচে আমি বহুকাল থেকে জড়ো হয়ে আছি,
আমাকে নামাও
ছাড়িয়ে নাও অন্ধকার।

আপনার মতামত জানান