দুটি কবিতা

স্বপ্না বন্দ্যোপাধ্যায়

গল্প

ঝাউগাছ পাশে ছিলো জমি ও বালির
ছোটগল্প দু’টো মুখোমুখি বসেছিলো টিউশন শেষে
চিবুকের হাওয়াতে রঙিন রিবন
উড়ছিলো সাইকেল, স্কুল ব্যাগ, নোটের ঝর্ণা, লাল-সাদা জামা
গাল মেলে রেখেছিলো না হওয়া চুম্বন
প্রজাপতি টোনা মেরে গেলো


#

ছাতার গোলাপি বাঁটে পায়রা বকম
তবু কেন ছুরি এলো শানিত ধার!
রূপো নয়, সোনা নয় কাগজের নৌকো
ভেসে গেলো হৃদয়ের অচানক দূরে
বইখাতা নাম লেখা পর ও অপর
এক চিহ্নে ভাগ হলো
শূণ্যেরা গড়াগড়ি খায়।



অন্তর্নিহিত

অন্ধকার ঘরে সেদিন নেমে এসেছিলো নেশা
এক হরিদ্রা যোবন, এক আসমানি আদাহ
নেমে এসেছিলো চরম আর পরিপূর্ণ কার্পেট
কী আরাম সেই আলোয়!
কী আরাম সেই ভাসন্ত বালিশ
নেশা উড়তে উড়তে ঘুমোতে এসেছিলো
তোমার কোটরের ডালপালায়
আঙুলে জড়ালে তাকে
বেছে দিলে সময়-উকুন
তারপর ধারণ করলে আ-শরীর উন্মুখ

#

বিকেল রাতের কাছে ঋণী থেকে গেলো

আপনার মতামত জানান