৩টি কবিতা

শুভদীপ দত্ত চৌধুরী
সান্তাক্লস

ইচ্ছেখুশি শব্দ দিয়ে বুনি
বিকেলবেলার হলুদ সোয়েটার,
যেমন করে খেয়ালি টুনটুনি
সাজিয়ে তোলে গল্প, ঠাকুমার

ঝুলির ভেতর কতরকম পাখি,
শীতের শহর, ঘুমপাড়ানি কেক...
আমরা তাদের বন্ধু বলে ডাকি।
রবিনসনের হঠাৎ শিপ-রেক...

এবার তবে ত্রাণকার্য্যে আসুন
মনের মধ্যে বিপদজনক ধস-
বাচ্চামেয়ে খেলনা ভালবাসুক,
তার দিদিকে আমি, সান্তাক্লস!




দোস্তি

নিচু পশলা
টানা বৃষ্টি। সাথে বিদ্যুৎ...

কিছু যশ লাভ
অনাসৃষ্টি। মাথা কুটকুট

পথে দিনরাত
অটো-রাক্ষস। লোক নাজেহাল

ক্ষতে পিন’রাও
কটুবাক্য। বড় বাজে হাল!

আহা বর্ষা
কত স্বস্তি। কিসে মাপব?

ডাহা খরচা
অ্যায়সি দোস্তি। অ্যায়সা কাব্য।



সেলসম্যান

দেবুদা সেলসম্যান। বাড়ি বাড়ি ধুপ বিক্রি করে,
“মাসিমা, নেবেন? দুটো নিলে একটা ফ্রী”, তারপরে
সারাদিন রোদে পুড়ে অবিক্রিত ধুপগুলি নিয়ে
বাড়ি ফিরে আসে একা, পশুদের মতো চার পায়ে।

তার কাজ গন্ধবিক্রি। আমার কাজ কবিতা লেখা
দু’জনে অনেক মিল। দুজনেরই আছে চারপা।
আমার ঘরে আঁধার। তারও ঘরে গন্ধের অভাব,
যে যার মত বিক্রয় করি, স্ব স্ব বাচাল স্বভাব।

আপনার মতামত জানান