শারদীয়া

অগ্নি রায়




মহালয়া

আণ্ডার-ফিফটিন ফুটবল প্রতিযোগিতাগুলির মাঠ বরাবর চকের দাগের অনিবার্যতায় আজও দীর্ঘ হয়ে থাকেন বীরেন ভদ্র! শেষরাতের সুরেলা উৎকণ্ঠা, অস্ত্রদানের ক্লাইম্যাক্স পর্যন্ত অ্যাড্রিনালিনের আভা ফেলতে থাকে। আর দেবাসুরের হট্টগোলের এই গোপন সুযোগ নেয় শিউলির গেরিলা গন্ধ। গঙ্গাপারের দূষিত বাতাসে দাঁড়ানো পিতৃহীন অনাথের ম্লান মুখের কাছে, শরৎ এসে দাঁড়ালো আলপনা দেবে বলে


ষষ্ঠী

অপেক্ষার বজ্রপাত। নতুন লার্ভার চটচটে রেশম বস্ত্রের গন্ধে ম ম করছে ভোগ লাগা বাজারের সনাতন রূপ। চতুর্দিকে জ্যামিং করতে করতে চেনা অচেনা রিংটোন নতুন প্রজন্মের কফি-কাকলি তৈরি করে। মণ্ডপের প্রতিমাতীত হুল্লোড়ের নাতিদূরে শেষ বিশ্রামটুকু সেরে নিচ্ছে পরগণা থেকে আসা ক্ষুৎকাতর ঢাকের রুগ্ন কাঠিরা


সপ্তমী

সকালের উজ্জ্বল চালচিত্র, সন্ধ্যার ক্রমিক রোশনাইয়ের কাছে হাঁটু গেড়ে পাপ প্রার্থনা করে। প্যাণ্ডেল-রোমিওর তিরছি নজরিয়ার ভাপে আধসেদ্ধ হতে থাকে জুলিয়েটের কুসুম। ভিড়তন্ত্র বাড়তে বাড়তে একসময় সেই পরীপুকুর। যার গুগলি জেলি হাঙ্গরের গর্ভে শামুকেরও সাধ্য হয় খোল ছেড়ে মাথা তোলার। মাইকের দাপট-লটারি সবাইকে স্পর্ধার কুপন বেঁটে দেয়


অষ্টমী

অঞ্জলী থেকে ধুনুচি নাচ - এক উতরোল ঘোরে পাওয়া মাধ্বী মহোৎসবের মত। এই রাতের যেন কোনও শুরু, কোনও শেষ নেই। এই হ'ল সেই সময় যখন গ্যালারি নেমে আসে মাঠে, একাকার হয়ে যায় নিরাপত্তা- খেলোয়াড়- দর্শকদের পারষ্পারিক নিষেধাজ্ঞা। সন্ধিপূজোর আশ্চর্যপ্রদীপ মধ্যরাতের শ্রীচরণে পুরনো শতাব্দীর লাইটিং মারতে থাকে।


নবমী

ডাউনে হয়ে যাওয়া নেটওয়ার্ককে সচল করতে জিনগন্ধ বহে আনে প্রাক উত্তুরে হাওয়া। সঙ্গে লেবু আর লিমকা এই আবগারি মওকায় চাহিদা বাড়িয়ে নেয়। বিস্তৃত মেকশিফট বিপনী গতরাতের হ্যাংওভার আর মাংসের ছাঁটওয়ালা পাড়াতুতো রোল-মোগলাইয়ের পাহাড় বুকে নিয়ে পড়ে থাকে। প্যারাসিটামল আর অ্যাণ্টাসিডের কব্জায় আসতে শুরু করেন সর্বরূপেন সংস্থিতা। প্যাণ্ডেলের পিছনের পাথুরে অন্ধকার ক্রমশ চওড়া হয়ে পাড়ায় পাণ্ডুলিপিকে ঢেকে দেয়। বোতলের শেষ মনখারাপটুকু ঢেলে চিয়ার্স বলা ছাড়া গত্যন্তর থাকে না আর

দশমী

যৌবন বেলা পড়ন্ত, তবু একটিও মিস্‌ড কল পেল না যে মেয়েটি, তাকে তুমি আসছে বছরেও মনে রেখো ঠাকুর। তার পরাণের সঙ্গে ঝুলনখেলার দিন বচ্ছরকারের মত শেষ। তিনদিনের শাহরুখ খান এবার ভ্যানিশ হয়ে যাবে প্রকৃত কোনও জুহির দিগন্তে। পড়ে থাকবে প্রতিমাহীন খাঁ খাঁ চালাঘর, বাঁশ, আর ঘটের নির্জনতা - গতকালেও যাকে বিশ্ববাজার ব্র্যাণ্ডের মালা পরিয়ে রেখেছিল


অলংকরণ- তৌসিফ হক

আপনার মতামত জানান