বৃশ্চিক

স্মরণজিৎ চক্রবর্তী


কাঁকড়া বিছেটা পড়ে আছে।
ন্যাড়া পণ্ডিত বলেছিল “তোমার বৃশ্চিক রাশি। খুব সাবধান। প্রেমক্ষয় অনিবার্য। আর শেষ বয়সে তুমি উন্মাদ হয়ে যাবে”।
অল্প অল্প ঠাণ্ডায় বসে রয়েছে দৈ। দ্বৈপায়ন। আলুক ঝালুক হাওয়া আসছে। আর মনে পড়ছে শ্রীকে। ছেড়ে চলে যাওয়ার আগে শ্রী বলেছিল, তুমি পাগল। তোমায় বিয়ে করে আমি পাগল হব নাকি?
বত্রিশ বছর কেটে গেল। সময় যেন জল। আঙুলের ফাঁক দিয়ে পড়ে যায়। সেদিনের দ্বৈপায়ন হয়ে যায় আজকের দৈ পাগলা।
ও বসে থাকে একা নির্জন বারান্দায়। ঝরা তেঁতুল পাতার মতো কিছু মনে পড়ে। কিছু পড়ে না। জুতো দেখে বোঝে না কোনটা ডান আর কোনটা বাঁ। বোঝে না মানুষের কথা মাঝে মাঝে আসে না কেন।
দৈ শুধু দেখে কাঁকড়া বিছেটা পড়ে আছে। ও জুতো তোলে। ওর সর্বনাশের মূল যে কাঁকড়া বিছে তাকে এক ঝটকায় পিষে দিতে চায়, শেষ করে দিতে চায়।
জুতো তোলে দৈ। কিন্তু মারতে পারে না। কিচ্ছু করতে পারে না। শুধু শূন্য চোখ তুলে দেখে কাঁকড়া বিছেটে পড়ে আছে ওর নাগালের অনেক বাইরে। আকাশের এ মাথা থেকে ওই মাথা জুড়ে পড়ে রয়েছে শয়তান কাঁকড়া বিছে। বৃশ্চিক।


অলংকরণ- তৌসিফ হক

আপনার মতামত জানান