দুটি কবিতা

রিনি চক্রবর্তী
তোমায় দেখেছি যেই...

শব্দ বিহীন,গম্ভীর প্রান্তর অন্তরে আছঁরে কাটে দাগ
হৃদয় জড়ায় অরূপ মায়ায় অভিনব ক্রীতদাস-
মলিনতাহীন চোঁখের চাওয়া বাহ্যিক মরুহ্রাস
আষ্টে-পিষ্টে জড়ায় এ কোন মলিনময়ী ঘাস।
কুঞিত তার চুলের বাঁধন স্বপনে তার কায়া--
হাসিতে তার পুষ্পরীনি পদ্মের সাথে মায়া
কোমল স্বরে বলে ওঠে যেই হৃদয় তখন পাখি,
মেঘের সাথে ঘর বেঁধেছি বৃষ্টির সাথে ফাঁকি...
ও রূপ তোমার রূপের মায়ায় জড়িইয়েছি বহুবার...
আমার মনের তানপুরা টায় ধুলো ধরে আর...
ও রূপ তোমার রূপের মায়ায় মরেছি বহুবার।।


মন ভাল তো সব ভাল

মনের কোন জাত হয় না মনের নাই কোন লিঙ্গ
মন হল পাগল রাধা অথবা শিবলিঙ্গ।

মন হল শ্যামের বেণু কখনো যুদ্ধের হুংকার
মন হল চাঁপা পরা ছাই অথবা ধূলার সমাহার..
মনের কোথায় লুকিয়ে সুখ কোন কোটরে দুঃখ
মনও জানে না মনের মাঝে
      কখন? কোথায়? কে ? ঘর বাঁধে,
মনের ধাঁধায় পড়লে বোধ হয় 'চোঁড়া কাঁটায় সমৃদ্ধ।

মনের কোন জাত হয় না মনের নাই কোন লিঙ্গ...

লাগলে ব্যাথা মনের মাঝে শরীরের তুচ্ছ লাগে
মনের আগুন জ্বাললে পরে দাবানল তখন ছোট্ট আঁছ--
মনের খুশী অনেক বেশি,
       আর, সেখানের ঈশ্বরের বাস।
মনের কোন জাত হয় না মনের নাই কোন লিঙ্গ...
মন হল পাগল রাধা অথবা শিবলিঙ্গ।

আপনার মতামত জানান