শুভ নববর্ষ

অভীক দত্ত
শুভ নববর্ষের প্রীতি ও শুভেচ্ছা জানাই আদরের নৌকার বন্ধুদের। আমরা যে ভাষায় কথা বলি, যে ভাষায় সাহিত্য রচনা করি, সেই ভাষার ক্যালেন্ডার শুরু হচ্ছে আজ থেকে। যদিও আমাদের জীবনে এই বাংলা ক্যালেন্ডারের ভূমিকা এখন ভীষণ কমে এসেছে। এক পুজো আচ্চা ছাড়া এই মাসের গুরুত্ব আমাদের কাছে নেই বললেই চলে।ওহ আর দু দিন থাকে। পঁচিশে বৈশাখ এবং বাইশে শ্রাবণ। বাকি বছরটা বাংলা ক্যালেন্ডার নিস্তব্ধ নির্বাক অবস্থায় থাকে। যাই হোক, এই কথাগুলোও ক্লিশে হয়ে যাচ্ছে, দেখা যায় প্রতি বছর এই সময়েই আমরা এই কথাগুলি বলি।
এবার অন্য কথায় আসি। একটা ছোট গল্প বলে দি।
আমরা যারা লিটল ম্যাগ করি তারা জানি ম্যাগ চালাতে হলে আমাদের বেশ কিছু কম্প্রোমাইজ করতে হয়। একটা লিটলম্যাগের খুব গুরুত্বপূর্ণ একটা ব্যাপার হল বিজ্ঞাপন। বিজ্ঞাপন না এলে নিজের পকেট থেকে টাকা বের করে একের পর এক ম্যাগাজিন বের করা খুব কঠিন ব্যাপার হয়ে দাঁড়ায়।
লিটল ম্যাগ করার সময় বিজ্ঞাপন জোগাড় করতে গিয়ে এরকম অনেকের সাথে পরিচয় হয়েছে যাদের লেখা ছাপলে বেশ কিছু ভাল অ্যাড আপনার ম্যাগে চলে আসবে। ঐ এক পাতা কবিতা বা চার পাতা গল্পে মোটামুটি ভাল অঙ্কের বিজ্ঞাপন চলে আসে। তা আমি যখন প্রথম প্রথম ম্যাগ করতাম হাত খরচার টাকা বাঁচিয়ে, এরকম অফার আসত। আমরা তখন নতুন ম্যাগ করি। এই অ্যাডের জন্য এমন কম্প্রোমাইজ? কভি নেহি। এই পণ করে চলতে গেলাম। দু তিনটে সংখ্যা বের করার পরেই বাস্তবটা বুঝতে পারলাম, কিন্তু তখন বড্ড দেরী হয়ে গেছে। ফিরে যাওয়া যাবে না।
পরে যখন অনেক গুরুত্বপূর্ণ ম্যাগে সেই লেখা এবং তার পাশে বিজ্ঞাপনগুলি দেখি তখন মনে হয় এই পথটা নিলে হয়ত আমরাও নিশ্চিন্তে প্রিন্ট ম্যাগগুলি বের করতে পারতাম।
হ্যাঁ, আমরা প্রিন্ট ম্যাগ বের করতে চাই,এবং তার জন্য বিজ্ঞাপন চাই। সম্পাদকীয়তে এরকম নির্লজ্জের মত চাওয়া চাওয়িটা দেখতে ভাল লাগে না ঠিকই কিন্তু আমার মনে হয় নতুন বছরে পুরনো ভুলগুলি শুধরাবার সময় এসেছে। লিটল ম্যাগ হিসেবে আমাদের আর্থিক দিকগুলিও বুঝে নেবার সময় এসেছে।
আশা করব, আমরা আমাদের লক্ষ্যে সফল হতে পারব।
ভালো থাকুক, ভালো কাটুক নতুন বছর।

অভীক দত্ত
১লা বৈশাখ

আপনার মতামত জানান