বিশ্বকাপ, বিশ সাল বাদ

প্রকল্প ভট্টাচার্য

 


নমস্কার, নমস্কার, নমস্কার। আজ এই বিশেষ দিনে, দু’হাজার চৌত্রিশ সালের দশই জুলাই আপনাদের নিয়ে এসেছি যুবভারতী ক্রীড়াঙ্গনে, যেখানে আর কিছুক্ষণের মধ্যেই ভারত এবং ব্রাজিলের মধ্যে শুরু হতে চলেছে বিশ্বকাপ ফুটবলের ফাইনাল খেলা। আপনারা যারা মোবাইলে এই খেলার সরাসরি সম্প্রচার দেখছেন, তাঁদের জন্য এক বিশেষ অনুষ্ঠানের ব্যবস্থা করা হয়েছে, তা হলো স্টেডিয়ামের বাইরে। আসুন, আমরা দেখি মাঠের বাইরে এই খেলা নিয়ে মানুষের মধ্যে কেমন উত্তেজনা! প্রথমে আমরা কিছু মধ্যবয়সী মানুষের কথা শুনব। আচ্ছা, একটু এদিকে আসবেন? হ্যাঁ, আপনাকেই বলছি। আপনি নিশ্চয়ই আজ খেলা দেখতে এসেছেন?
-হ্যাঁ, অবশ্যই! এই খেলা ছাড়া যায় না কি!
-কিন্তু আপনার হাতে তো ওটা ব্রাজিলের পতাকা!
-নিশ্চয়ই! ব্রাজিল আমার ধ্যান জ্ঞান স্বপ্ন! সেই ছোটবেলা থেকে আমি ব্রাজিলের সাপোর্টার!
- কিন্তু ভারতীয় হয়েও...
-দেখুন, আমি ভারতীয় হওয়ার আগে বাঙালি, এবং বাঙালি মানেই হয় ইস্ট-মোহন, নয়তো ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার ভক্ত।
ও আচ্ছা আচ্ছা বুঝেছি! দেখলেন, কীভাবে নিজের বাঙ্গালিয়ানা বজায় রাখতে উনি নিজের দেষের আগে নিজের অভ্যাস বজায় রেখেছেন! আচ্ছা এবার কিছু কলেজের ছাত্রীদের কথা শোনা যাক। একটু এদিকে আসবেন?
-হাআই! হিহিহি... আপনাকে না, ভারি কিউট দেখতে! আপনি কি মডেলিং করেন?
-না, আমি মিডিয়াতে আছি। আচ্ছা, আজ নিশ্চয়ই আপনারা...
-মিডিয়া? ওয়াও!! আচ্ছা, আমি মিডিয়াতে চান্স পাবো না? ওরা কি হাইট দেখে, না কমপ্লেক্সন?
-তার জন্য আপনাকে অ্যাপ্লিকেশন করতে হবে। কিন্তু আমার প্রশ্নটা ছিল, আজ যে খেলা...
-ওঃ, খেলা মাই ফুট! যেখানে যাচ্ছি শুধু খেলা খেলা খেলা... গেট সাম লাইফ, ইয়ার!
-আপনারা এখানে খেলা দেখতে আসেন নি?
- শিট। হু কেয়ার্স ফর দিস ব্লাডি গেম! আমরা তো শপিং করতে বেরিয়েছি!
-ওহো, ঠিক আছে, তাহলে আপনারা শপিং-র যান, আমরাও একটু এগোই।
হ্যাঁ, ওইতো, ভারতের পতাকা নিয়ে বেশ কিছু সমর্থক। ওনাদের মতামত জানা যাক।
-দাদারা, নমষ্কার!আপনাদের এখন কেমন লাগছে?
-নমষ্কার!আজ আমরা ভীষণ গর্ববোধ করছি! এক বিশেষ দিন, জীবনের এক স্মরণীয় মুহুর্ত, আর তা সম্ভব হয়েছে কেবলমাত্র আমাদের প্রিয় নেতার জন্যেই! নেতাদাদা, অমর রহে! নেতাদাদা, অমর রহে!
-সে তো ঠিক আছে, কিন্তু আজ এই খেলা...
-এ তো শুধু খেলা নয়, এ হল বিশ্বের দরবারে আমাদের কড়ানাড়া! উন্নতির দৌড়ে ভারত যে ব্রাজিলের সাথে পাল্লা দিয়ে চলছে, তার প্রমাণ!
-আরে গাধা, ব্রাজিল মোটেই কোনও উন্নত দেশ নয়! আর এই গোটা টুর্নামেন্টটাই তো গট আপ!
-কে বললেন? ওহো, আপনি নির্ঘাত বিরোধী দল। আপনাদের জন্যেই দেশের ভাল কিছু হল না।
-কেন? আপনারা ফিফা-কে ঘুষ দিয়ে বিশ্বকাপের পরিচালনা করবার দায়িত্ব নেন নি? একের পর এক ম্যাচ রেফারিং এর ভরসায় জেতান নি, যাতে ভারত ফাইনালে ওঠে?
-দেখুন আপনারা এভাবে ঝগড়া করবেন না, একে একে বলুন যা বলবার।
-কী আর বলব! এই বিরোধীরা হল দেশদ্রোহী। এরা ভারতের মঙ্গল চায় না, তাই নেতাদাদার নামে কুতসা করে বেড়ায়!
-আমরা সত্যি কথা বলি, সেটা আপনাদের সহ্য হয় না। এই খেলাধুলো সমস্তই লোকদেখানো, ভোট টানবার ভড়ং। দেশের উন্নতি এভাবে হয় না, শিক্ষা, বিকিতসা, শিল্প বাণিজ্য, বিনিয়োগ, এগুলোর উন্নতির জন্যে কী করেছেন আপনারা শুনি?
-নাঃ, এনাদের বিতর্ক থেকে সরে আমরা বরং ওই একটা বাচ্চা ছেলে, একা একটা তেরঙা পতাকা হাতে দাঁড়িয়ে আছে, তার কথা শুনি। ভাই, তুমি আজ কার সমর্থক?
-মেরা ভারত মহান!
-তোমার কি মনে হয়, আজ ভারত জিতবে?
-ভারত নিশ্চয়ই জিতবে! আমি খুব হাততালি দেব আর চেঁচিয়ে উৎসাহ দেব!
-বাঃ! এই তো চাই! তাহলে চলুন, আমরাও খুব হাততালি দিই, কারণ এবার দুটি দলের মাঠে নামবার সময় হয়ে এসেছে। বাকী সম্প্রচার মাঠের ভিতর থেকে শুনবেন।
ধন্যবাদ।


আপনার মতামত জানান