চাদ্দিকে ট্রেন্ড-২ একটি ৬ নম্বরের পরীক্ষা

শবর মিত্র

 

টিকা লিখ

বুদ্ধিজীবী (১ নম্বরের জন্য লিখ)
ইহারা একচক্ষু হরিণের ন্যায় বিশেষ বিশেষ কার্য কারণে প্রতিবাদ করেন এবং অন্য অবস্থায় নীরবতা পালন শ্রেয় বলিয়া মনে করেন। যাহারা পাপোষ তালে নীরব এবং অমিত বিক্রমে সরব, তাহারাই বুদ্ধিজীবী। সুদৃশ্য পাঞ্জাবী পরিহিত ইহারা শহিদ বেদী হইতে নজরুলগীতি, সকল স্থানে বিদ্যমান থাকিতে পছন্দ করেন। কেদারা পরিষ্কারে ইহাদের বিশেষ কৃতিত্ব লক্ষ্য করা যায়।


নারী সম্মান (২ নাম্বার)
ভারতবর্ষে প্রত্যক্ষভাবে এবং পরোক্ষভাবে প্রাপ্ত। বাসে ট্রামে ট্রেনে স্কুলে কলেজে নারী পোশাকের প্রতি ভারতবর্ষীয় পুরুষগণ বিশেষ যত্ন লইয়া থাকেন। খাপ পঞ্চায়েতে সুবিচার এবং খাপে খাপে পাপোষ তালের বালক পাঠাইবার মাধ্যমে এই দেশে নারী সম্মান রক্ষিত হইয়া আসিয়াছে। এই দেশীয় সংবিধান অনুযায়ী, পুরুষগণ রাস্তায় খুচরো গণিবার ন্যায় নিজ হস্ত দিয়া নিজ যৌনাঙ্গ ঘর্ষণ করিলে কিংবা রাস্তার মাঝে উহা বাহির করিয়া মুত্র ত্যাগ করিলে তাহা কোনমতেই অভদ্রতার আওতায় পড়ে না, লেকিন নারী জাতি বিদ্যালয়ে শাড়ির পরিবর্তে সালোয়ার-কামিজ পরিলেই তাহা মারাত্মক অন্যায় বলিয়া পরিগণিত হয়। রাত্রি কালে নারী ধর্ষণ প্রকারান্তরে নারীর অন্যায় বলিয়াই মানিয়া নেওয়ার প্রচলন হইয়া আছে। রামায়ণে নারীর স্থান পাতালে এবং মহাভারতে সভামধ্যে বিবস্ত্র করিবার মধ্যে নিহিত রহিয়াছে বলিয়া ভারতবর্ষে ধর্ষণ আদিতে “ছোট ঘটনা”, মধ্যে “সাজানো ঘটনা” এবং অন্তে “মোমবাতি মিছিল”এ সীমাবদ্ধ রহিয়া থাকে।
“কেন তুমি ওখানে গিয়েছিলে?” , “কেন তুমি ছোট পোশাক পড়েছিলে”, “কি, কেন, কেন, কেন, কেন?” প্রশ্ন সমূহ নারীদের প্রতি ছুঁড়িয়া দেবার অর্থ আপনি ভারতবর্ষে আসিয়া পড়িয়াছেন।

স্মৃতিশক্তি (৩নম্বরের জন্য লিখ)
এক অদ্ভুত বস্তু। পাবলিকের ইহা থাকে না বলিলেই চলে। ভাল জিনিস, একটা ডি এ কিংবা দুটো ফিল্মস্টার দেখলে ইহা লোপ পাবার সম্ভাবনা প্রবল। ভোটের বোতাম টিপিবার প্রাক্কালে ইহারা বিস্মৃত হয় সারা বছর ধরিয়া কি কি পাইয়াছেন। দুইটি হাত নাড়া, একখানি সিনেমার ডায়লগ পাইলেই এই স্মৃতিশক্তি বস্তুটি বিলুপ্ত হইয়া যায়। মনে রাখিবেন ইতিহাসের বাদশাহরাও একই প্রক্রিয়ায় রাষ্ট্র শাসন করিতেন। তাহারা ভাবিয়াই লইতেন জনগণ কিছুই মনে রাখে না। একমাস, বড় জোর দুমাসে সবার স্মৃতি নষ্ট হইয়া পড়ে। রৌপ্য মুদ্রা বিলি ব্যবস্থার মাধ্যমে তাহারা রাজ্য শাসন করিতেন। যত জঘন্য কাজই হউক জনগণ নিজেকে ব্যতীত কাহাকেও চেনে না বলিয়া অন্যের যত সর্বনাশই হউক, যতক্ষণ না স্বীয় স্কন্ধে সমস্যা আসিয়া পড়িবে, তাহার আগে অবধি উহারা অকুতোভয়। এই প্রকারেই প্যালেস্তাইনের জায়গায় আসিয়া পড়ে অবোধ সরকার, রিজের জায়গায় অজ্ঞান সিং।
অধিক উদাহরণ চাহিয়া জ্বালাতন করিবেন না,লেখকের জান লইয়া টানাটানি হইলে যে পাঠকে এবং পরীক্ষক গণেরা কেহ আসিয়া রক্ষা করিবেন না তাহা পরীক্ষার্থী ভাল করিয়াই অবগত আছেন।


তৃতীয় বিকল্প (লিখিলেও হয়, না লিখিলেও নয়)
ইহা চাহিয়া লজ্জা দিবেন না।

sabarmitra9@gmail.com



অতঃপর

আপনার মতামত জানান