বিশ্বকাপ ক্রিকেটে ভারতের আশা ক্ষীণ

শবর মিত্র

 



ধোনিকে নিয়ে যারা মাতামাতি করেছেন তারা যদি তার বিদেশের ফলাফল দেখেন তবে হতাশই হবেন তারা। যে সময়টায় পূর্ণ শক্তি অস্ট্রেলিয়া খেলেছে সেই সময়টাতেও ধোনিকে খেলতে হয় নি। এমন কি নিজের দেশের মাটি ছাড়া ধোনির তেমন বিরাট কোন সাফল্যও দেখা যায় নি। টেস্টে অ্যওয়ে ম্যাচগুলি ধরলে তো ধোনির পারফরম্যান্স শোচনীয় বললেও কম বলা হয়। সেদিক থেকে দেখতে গেলে এবার বিশ্বকাপে ধোনির আসল পরীক্ষা হতে চলেছে। দেখা যাক ব্যাটসম্যানদের ক্ষেত্রে ধোনির শক্তি ও দুর্বলতার জায়গা

শিখর ধাওয়ান- স্টেডি নাকি নিজেই জানেন না। বুকের ওপরে ওঠা বলে আগ্রাসন লেজ গুটিয়ে পালায়। অফসাইডের বাইরে পা না বাড়িয়ে শট খেলে বিপদ বাড়িয়েছেন বহু বার। শুরুতে আউট হওয়ার প্রবণতা আছে।
রোহিত শর্মা- কবে ভাল খেলবেন নিজেও জানেন না, ধারাবাহিকতার অভাব।
বিরাট কোহলি- আসল সময়ে জ্বলে ওঠেন। গোটা দলের ব্যাটিং লাইন আপ তার দিকে তাকিয়ে। চাপ নিতে পারেন কিনা দেখার সেটাই
অজিঙ্ক রাহানে- ভাল খেলেন তবে বল কোমরের ওপর উঠলে দুর্বলতা স্পষ্ট।
ধোনি- বিদেশের মাটিতে বাউন্সি ট্র্যাকে ব্যাটিং ব্যর্থতা স্পষ্ট।
রায়না- বাউন্সারে দুর্বল। ব্যাটের কানায় লেগে কট বিহাইন্ড হওয়া অভ্যাসে দাঁড়িয়ে গেছে
জাদেজা- ফিট না আনফিট নিজেই জানেন না। বাউন্সি ট্র্যাকে খেলতে পারবেন বলে মনে হয় না।

সেভাবে দেখতে গেলে এই হল ভারতের ব্যাটসম্যান। দলে শেওয়াগ নেই, যুবরাজ নেই, গম্ভীর নেই। সম্পূর্ণটাই শ্রীনি গ্রুপ এবং ধোনির গায়ের জোরের বিসিসিআই একাদশ। যদি ভারত জেতে তো ভাল, নইলে ধোনির ক্রিকেট জীবন ঘোর অনিশ্চয়তার সম্মুখীন হতে পারে। যদিও অসমর্থিত সূত্র অনুযায়ী এবার বিশ্বকাপের পর সব ধরনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নিতে পারেন তিনি।
অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে অক্ষর প্যাটেল, স্টুয়ারট বিনি, অশ্বিনরা যে কোনভাবেই সফল হবেন না সেটা বলার জন্য জ্যোতিষী হবার প্রয়োজন নেই। মোহিত শর্মা যেমন চেন্নাই দল থেকে হঠাৎ করে ধোনির প্রিয়পাত্র হয়ে দলে ঢুকে পড়লেন কিন্তু কোনভাবেই দলের বোলিং লাইন আপে কোন রকম শক্তি যোগ করতে পারবেন বলে মনে হয় না। মহম্মদ শামি উইকেট নিয়মিত পেলেও রান দিয়ে দিচ্ছেন বেশি করে। এই দলে জাদেজা, মোহিত শর্মা, কিভাবে আসেন ধোনিই ভাল বলতে পারেন।
বিশ্বকাপের যা ফিক্সচার তাতে কোয়ার্টার ফাইনালে ওঠা ভারতের পক্ষে অসুবিধার কিছুই নেই। কিন্তু তারপরে কতদূর তারা যেতে পারেন প্রশ্ন সেটাই।
ক্যাপ্টেন হিসেবে এবং খেলোয়াড় হিসেবে আমার মনে হয় না ধোনি ভারতকে এবার বেশি কিছু দিতে পারবেন বলে। মাঝখান থেকে বিজ্ঞাপনে ছোড়া বানগুলি ব্যুমেরাং হয়ে ফিরে না আসে ভয় সেটাই।

আপনার মতামত জানান