বালখিল্য ভাষার আঙ্গিকে গভীর বোধের চলাচল

আবেশ কুমার দাস

 



নামে যায় আসে অনেককিছুই। বিশেষত নাতিসাধারণ নামকরণের প্রতি বরাবরই ক্রিয়াশীল থেকে যায় কথাসাহিত্যের তন্নিষ্ঠ পাঠকের এক গূঢ় অনুসন্ধিৎসা। আর যদি একটি আস্ত গল্পের বইয়ের নাম হয় ‘জেড মাইনাস’ তবে তো কথাই নেই। এই ‘জেড মাইনাস’ কিন্তু আবার কোনও পার্থিব বস্তুসত্তাও নয়। গল্পকার শৌভিক বন্দ্যোপাধ্যায়ের উক্ত সংকলন গ্রন্থটির নাম-গল্পে চোখ রাখলেই দেখা যাবে উক্ত শব্দবন্ধটি আদপে কাহিনির কেন্দ্রীয় চরিত্র অলোকের অন্তর্মুখী ভাবনার বহির্গামী প্রতিরূপ। সিপাই সান্ত্রী অমাত্য মন্ত্রীময় এক দেশের নিত্য নিরাপত্তাহীন ছাপোষা মধ্যবিত্তের স্বভাবজাত এই অন্তর্মুখীতার যথাযথ উপস্থাপনে কাহিনির ক্লাইম্যাক্স মুহূর্তে পরাবাস্তবিক প্রক্ষেপণের মৃদু ব্যবহারও দেখা গেছে গল্পকারের কলমে।
কোনও চাকচিক্য নেই শৌভিক বন্দ্যোপাধ্যায়ের গদ্যভাষায়। ভাষার গাম্ভীর্য দূরস্থান, আপাতদৃষ্টিতে তাঁর লেখনীকে মনে হতেই পারে বালখিল্যতাময়। ভাবা যেতেই পারে ‘ওরফে’, ‘সমর্থক’ বা ‘পথে এবার নামো সাথি’-র মতো কিছু লঘু চালের গল্প বলাতেই যেন সীমিত তাঁর ভাষার কার্যকারিতা। কিন্তু এখানেই তাঁর গদ্যভঙ্গির উত্তরণ—এহেন বালখিল্য ভাষাতেই এরপর তাঁর লেখনীতে ধরা পড়বে ‘জেড মাইনাস’ বা ‘গ, ল, প আর একটি পুরোনো আঙ্গিকের বিবরণধর্মী আখ্যান’-এর গোত্রের আপাদমস্তক সিরিয়াস এমনকি গভীর চিন্তাসমৃদ্ধ গল্পও।
পগার পেরোতে গিয়ে গ-র আগে চলে যাওয়া এবং শেষে ভীত ল-কে পিঠে নিয়ে প-র যাত্রার যে পুরনো ‘আখ্যান’ থেকে আবির্ভাব আজকের ‘গল্প’-র সেই পরিচিত কাহিনিকেই গোগোল, ল্যাবি ও পাবলোর দৌত্যে ভবিষ্যতের এক কল্পিত বিশ্বে টেনে নিয়ে চলেন গল্পকার। ‘গ, ল, প আর একটি পুরোনো আঙ্গিকের বিবরণধর্মী আখ্যান’ কোনও কল্পবিজ্ঞান নয়—বিজ্ঞানের কল্পনাসমৃদ্ধ এক গভীর বোধের গল্প। এবং সিঁড়িভাঙা অঙ্কের মতো অত্যন্ত যুক্তিসম্মতভাবে এই বোধকে প্রতিষ্ঠিত করেন গল্পকার। বলে রাখা দরকার, এই গল্পের অন্তর্নিহিত ব্যাপ্তিটিও অপার। জীবন থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে নয় বরং জীবনের সম্পৃক্তি থেকেই যে বরাবর মন্থিত হয়ে ওঠে সৎ শিল্পের রসদ—উক্ত উচ্চারণটুকুও অনুক্ত থাকেনি এই গভীরতম বোধের গল্পটিতে। আমার মতে চলতি দশকের স্বকীয় সাহিত্যধারার স্মারক হয়েই ভবিষ্যতে অস্তিত্বশীল রয়ে যাবে শৌভিকবাবুর অন্তত এই ছোটগল্পটি।
এই গভীর বোধের জায়গা থেকেই তাঁর কলমে উঠে আসে ‘অবদমিত’-র মতো গল্প। যাবতীয় চাকচিক্যহীন যে স্বতন্ত্র গদ্যধারা শৌভিকবাবুর বৈশিষ্ট্য তার সঙ্গে সম্পূর্ণ সঙ্গতি রেখেই পুরুষের সমকামের মতো একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়কে তিনি উপস্থাপিত করেন যেন বাঁহাতের খেলায়। ভাষার মারপ্যাঁচ বা বর্ণনার বাহুল্যকে এড়িয়ে যত সহজে এই গল্পের কেন্দ্রীয় চরিত্রের অবদমিত সমকামকে প্রকাশ করেছেন গল্পকার নিঃসন্দেহে পাঠকের পাকস্থলী বিষয়টিকে আত্মস্থ করতে ততখানিই ধাক্কা খাবে।
রোহণ কুদ্দুসের প্রচ্ছদটি সাধারণ মানের।


জেড মাইনাস/ শৌভিক বন্দ্যোপাধ্যায়/ সৃষ্টিসুখ/ মূল্য: ৬৯ টাকা

আপনার মতামত জানান